কবি নজরুল সাহিত্য পদক পেলেন কথাসাহিত্যিক আমির হোসেন।

সাহিত্যে অবদান স্বীকৃতিস্বরুপ কবি নজরুল সাহিত্য পদক পেলেন ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কবি ও কথাসাহিত্যিক আমির হোসেন। গত ২৬ জুন রাজধানী ঢাকার সেগুন বাগিচায় অবস্থিত কচিকাঁচার মেলা মিলনায়তনে আনুষ্ঠানিকভাবে তাঁকেসহ তিনজনকে এ পদক প্রদান করা হয়।

১৯৫১ সালে প্রতিষ্ঠিত আন্তর্জাতিক নজরুল সাহিত্য পরিষদ ও দৈনিক মুক্তির লড়াই এর যৌথ আয়োজনে এ অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করেন বাংলাদেশ জাতীয় সংসদের সংরক্ষিত মহিলা আসন-১৭ এর সংসদ সদস্য হাবিবা রহমান খান শেলী। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন দৈনিক মুক্তির লড়াই এর প্রধান উপদেষ্টা, সাবেক তথ্য সচিব সৈয়দ মার্গুব মোর্শেদ। প্রধান আলোচক ছিলেন অর্থ মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব, পীরজাদা শহীদুল হারুন।

আন্তর্জাতিক নজরুল সাহিত্য পরিষদ এর সভাপতি, জাতীয় মানবাধিকার সোসাইটির চেয়ারম্যান, বিশিষ্ট নজরুল গবেষক ও সমাজ বিজ্ঞানী প্রফেসর মু. নজরুল ইসলাম তামিজী এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে মূল প্রবন্ধ পাঠ করেন বঙ্গবন্ধু গবেষণা পরিষদ এর সভাপতি লায়ন মোঃ গনি মিয়া বাবুল। স্বাগত বক্তব্য রাখেন দৈনিক মুক্তির লড়াই এর সম্পাদক কামরুজ্জামান জনি।সভা পরিচালনা করেন আন্তর্জাতিক নজরুল সাহিত্য পরিষদ এর সাধারণ সম্পাদক তৌহিদুল  ইসলাম কনক। এছাড়াও দেশের অনেক জ্ঞানী-গুণী ব্যক্তিবর্গ অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করেন।

অনুষ্ঠানে সাহিত্যে অবদান রাখার জন্য তিনজন গুণী লেখককে “কবি নজরুল সাহিত্য পদক”এ ভূষিত করা হয়। পদকপ্রাপ্তরা হলেন কবি ও কথাসাহিত্যিক আমির হোসেন,মাহবুবা হাবিবা ও মিতা চক্রবর্তী।

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কবি ও কথাসাহিত্যিক কবি আমির হোসেন নব্বই দশকের মাঝামাঝি থেকে লেখালেখির সাথে সক্রিয় হোন। কবিতা, উপন্যাস, গল্প, প্রবন্ধ, গবেষণা, গ্রন্থালোচনা, সম্পাদনাসহ ত্রিশের অধিক গ্রন্থ প্রণেতা এ লেখক নিয়মিত লিখে যাচ্ছেন দেশ ও দেশের বাইরের অসংখ্য জাতীয় দৈনিকের সাহিত্যের পাতা, শীর্ষস্থানীয় সাহিত্যের ছোট কাগজ, সাহিত্য সংকলন ও বিভিন্ন ম্যাগাজিনে।

কবি ও কথাসাহিত্যিক আমির হোসেন ১৯৭৩ সালের ৫ জানুয়ারি ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নবীনগর উপজেলার কৃষ্ণনগর ইউনিয়নের গৌরনগর গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। সাহিত্য সেবায় অবদান রাখার জন্য তিনি ইতোপূর্বেও তিনি বিভিন্ন খ্যাতনামা সংগঠন থেকে পুরুষ্কার ও পদকে ভূষিত হোন।

কবি ও কবিতা বিষয়ক সংগঠন ‘কবির কলম’ এর প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি মনিরুল ইসলাম শ্রাবণ, প্রতিষ্ঠাতা সিনিয়র সহ-সভাপতি হুমায়ুন কবির, সাধারণ সম্পাদক মহিউদ্দিন ইকরাম তানভীর সহ বিভিন্ন সংগঠনের নেতৃবৃন্দ তার এ অর্জনে লেখককে শুভেচ্ছা ও শুভকামনা জানিয়েছেন।