কেক কাটতে গিয়েই বিপত্তি, ডিভোর্স চাইলেন সদ্যবিবাহিত স্ত্রী!

অনলাইন ডেস্ক: বিয়েতে আজকাল পুরোনো রীতিনীতি যেমন থাকে তেমনই থাকে আধুনিকতার ছোঁয়া। আর তাই আজকাল বিয়ের দিনটিকে স্মরণ করতে অনেকেই কেক কেটে থাকেন। আসলে যে কোনও ভালো কিছু উদযাপন করতে কেক কাটার চল রয়েছে বহু দিন থেকে (Viral News)। সেটা এখন  বিয়েতেও দেখা যায়। আর এই কেক কেটেই বিপত্তি হল এই যুগলের। জানা গিয়েছে, বিয়ের দিন কেক কাটার পরই ডিভোর্সের কথা ঘোষণা করেন নতুন বৌ

মহিলা তাঁর ডিভোর্সের আবেদনে জানিয়েছেন, বিয়ের দিন কেক কেটে সেলিব্রেট হোক তা নিয়ে সমস্যা না থাকলেও কেক মুখে লাগানো হোক তা তিনি চাননি। এই সিদ্ধান্তের কথা আগে থেকেই তিনি তাঁর স্বামীকে জানিয়েছিলেন। এর জন্য তিনি প্রস্তাব দিয়েছিলেন সকলের জন্য কাপ কেক আনানোর কারণ বিয়ের দিন এমন করতে পারেন তাঁর স্বামী সে বিষয়ে আন্দাজ করতে পেরেছিলেন তিনি। তবে, কাক কেপ না এনে ওয়েডিং কেকই নিয়ে আসেন তিনি। বিয়ের দিন কথা মতোই কেক কাটা হয় এবং কেক কাটার পরই ঘটে বিপত্তি। মহিলা না চাইলেও তাঁর স্বামী তাঁর মুখে কেক গুঁজে দেন। যা একেবারেই ভালোভাবে নেননি তিনি। রেগে তখনই সিদ্ধান্ত নিয়ে ফেলেন একসঙ্গে না থাকার (Viral News)।

 

অভিযোগে তিনি আরও জানান, আগে থেকে নিষেধ করা সত্ত্বেও এই কাজ তাঁর একদমই অপছন্দ হয় এবং তিনি অপমানিত বোধ করেন। যার ফলে বিয়ের পরের দিনই স্বামীর বিরুদ্ধে ডিভোর্সের দাবি জানান তিনি।

একটি অনলাইন প্ল্যাটফর্মে এই গল্প শেয়ার করার সময় তিনি বলেন, কেক নিয়ে এই মজা করা তাঁর ইচ্ছার বিরুদ্ধে ছিল। তাঁর স্বামী তাঁর ইচ্ছার বিরুদ্ধে কাজ করেছেন যাতে তিনি খুবই অপমানিত হন আর তাই তিনি আলাদা থাকার সিদ্ধান্ত নেন। তিনি জানান, যাকে তিনি বিয়ে করেন, আগে তাঁর সঙ্গে মেলামেশা ছিল ফলে তাঁর ইচ্ছা অনিচ্ছা সম্পর্কে একটু হলেও ধারণা ছিল সেই যুবকের। তা সত্ত্বেও এ কাজ মহিলা কোনও ভাবেই মেনে নিতে পারেননি।

যদিও মহিলার পরিবার চান, এভাবে যেন তাঁরা আলাদা হয়ে না যান। তাঁদের যেন কথা হয় এবং সব মিটমাট হয়ে যায় সেদিকে নজর রাখছেন তাঁরা এবং কথা বলানোর চেষ্টা চলছে। বিয়ে ভেঙে যাক তা কখনওই তাঁরা চান না।

 

সোশ্যাল মিডিয়ায় এই কথা শেয়ার করার সঙ্গে সঙ্গেই সকলে ওই ব্যক্তিকে আক্রমণ করতে থাকে। প্রত্যেকেই মহিলার পাশে থেকে বলেন, ইচ্ছার বিরুদ্ধে কাজ করা কারও উচিত নয়। মহিলার তাঁর নিজের সিদ্ধান্ত নেওয়ার স্বাধীনতা আছে।

 

পথিকটিভি/চৈতী