পার্লারে মাসাজ করিয়ে বিপজ্জনক রোগে আক্রান্ত স্বামী, জেনে ডিভোর্স দিলেন স্ত্রী!

Spread the love

অনলাইন ডেস্ক: যে কোনও সম্পর্কের ক্ষেত্রেই ভালোবাসার পাশাপাশি বিশ্বাসেরও খুব প্রয়োজন। প্রতারণা যদি সম্পর্কের মধ্যে জায়গা করে নেয়, তবে সেই সম্পর্ক কিন্তু দীর্ঘস্থায়ী হতে পারে না। আজকাল সোশ্যাল মিডিয়ার দৌলতে এই রকম অনেক বিচ্ছেদ বা প্রতারণার ঘটনাই আমরা জানতে পারছি (Viral News)। সম্প্রতি সোশ্যাল মিডিয়ায়, একজন মহিলা তাঁর স্বামীর সঙ্গে হওয়া এই রকম এক প্রতারণার গল্প শেয়ার করেছেন। ওই মহিলা তাঁর গল্প বলার সময় নিজের পরিচয় গোপন রেখেছেন। মহিলার দাবি, মাসাজ পার্লারে গিয়ে তাঁর সঙ্গে প্রতারণা করেছেন তাঁর স্বামী। এই প্রতারণার প্রমাণ হল STD অর্থাৎ সেক্সুয়ালি ট্রান্সমিটেড ডিজিজ

ঘটনাটি কানাডার রিচমন্ডের বলে জানা গিয়েছে । মহিলার বক্তব্য অনুযায়ী, তাঁর স্বামী সেখানে একটি লাইসেন্সপ্রাপ্ত মাসাজ পার্লারে যেতে অভ্যস্ত ছিলেন। সেখানে ক্রমাগত যেতে যেতে এক সময় হঠাৎই তিনি যৌন রোগে আক্রান্ত হন। এই রোগ নির্ণয়ের পরেই ওই মহিলা জানতে পেরেছিলেন যে তাঁর স্বামী শুধুমাত্র মাসাজ করার জন্য পার্লারে যেতেন না। ভাগ্যক্রমে, মহিলা নিজে এই মারাত্মক রোগের কবল থেকে বেঁচে যান। কিন্তু বাস্তব ঘটনা বেরিয়ে আসার পর তিনি তাঁর স্বামীকে ছেড়ে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নেন।

 

কানাডার রিচমন্ড নিউজে এই ঘটনার তথ্য দিয়েছেন নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ওই মহিলা। তিনি জানান, স্বামীকে এই রোগের কথা জিজ্ঞেস করলে তিনি নির্লজ্জভাবে তা মেনে নেন। এছাড়াও, বিবাহবিচ্ছেদের কথা জানার পরেও তাঁর স্বামী ওই পার্লারে যাওয়ার বিষয়টি আরও প্রকাশ্য ভাবে মেনে নিয়েছেন। কিন্তু স্বামীর সামনে ডিভোর্সের বিষয়টি নিয়ে ঝামেলা করার আগে বিষয়টি নিয়ে নিশ্চিত হতে চেয়েছিলেন ওই মহিলা। এর জন্য ওই মহিলা স্বামীর ছবি তুলে মাসাজ পার্লারে গিয়ে বাস্তব ঘটনা খতিয়ে দেখে তবেই সিদ্ধান্ত নেন।

সেখানে কর্মরত অনেক মহিলাকর্মী ওই মহিলাকে নিশ্চিত করেছেন যে তাঁর স্বামী পার্লারে আসতেন। কিন্তু বিষয়টি জানাজানি হলে ওই মাসাজ পার্লারে অভিযান চালানো হয়। তখন অনেক কর্মকর্তা জানান, এখানে এ ধরনের কোনও কাজ হয় না। এটি শুধুমাত্র মাসেজের জন্য লাইসেন্সপ্রাপ্ত। যদিও এর আগেও ২০২০ সালের মার্চ মাসে এই পার্লারটি সন্দেহের আওতায় আসে। তখন এই পার্লারের যৌনকর্মীদের শূন্যপদ প্রকাশ করে একটি ওয়েবসাইটে তা প্রকাশ করা হয়। এবার এই ঘটনার পর ফের বিতর্কের মুখে পড়েছে এই পার্লার।

 

পথিকটিভি/চৈতী