কাপড়ের মাস্ক যথেষ্ট সুরক্ষা দেয় না: সিডিসি।

Spread the love

কাপড়ের মাস্ক নভেল করোনাভাইরাসের বিরুদ্ধে কার্যকর নয় বলে জানিয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের রোগ নিয়ন্ত্রণ ও প্রতিরোধ কেন্দ্র (সিডিসি)। শুক্রবার প্রতিষ্ঠানটি বিভিন্ন ধরনের মাস্ক নিয়ে প্রথমবারের মতো এমন মন্তব্য করেছে। খবর দ্য নিউ ইয়র্ক টাইমস

 

সিডিসি জানায়, অস্ত্রোপচারের সময় সার্জিক্যাল মাস্ক ভাইরাসের বিরুদ্ধে শ্বাসযন্ত্রের যে সুরক্ষা দেয় কাপড়ের মাস্ক সে সুরক্ষা দিতে পারেনা। অর্থাৎ আলগাভাবে বোনা কাপড়ের মাস্ক কভিডের বিরুদ্ধে সবচেয়ে কম সুরক্ষা দেয়। সঠিকভাবে লাগানো একবার ব্যবহারযোগ্য সার্জিক্যাল মাস্ক ও কেএন-৯৫ এস মাস্ক অন্য সব ধরনের মাস্কের চেয়ে বেশি প্রতিরক্ষামূলক। এর মধ্যে সর্বোচ্চ সুরক্ষা দেয় এন-৯৫ মাস্কটি।

 

নিউ ইয়র্ক টাইমস জানায়, এ বিষয়টি সাধারণ মানুষের কাছে আগে জানা থাকলেও প্রথমবারের মতো হালনাগাদ করেছে সিডিসির ওয়েবসাইটে। বিশ্বব্যাপী দ্রুত ছড়িয়ে পড়া কভিডের অত্যন্ত সংক্রামক ওমিক্রন ধরন ক্রমাগত বেড়ে যাওয়ায় সঙ্গে সঙ্গে এ পরিবর্তনটি আসে।

 

আমেরিকান কিছু বিশেষজ্ঞ বলেছেন, কাপড়ের মাস্ক ওমিক্রন থেকে সুরক্ষা পাওয়া যথেষ্ট নয়। এজন্য সাধারণ নাগরিকদের শ্বাসযন্ত্র রক্ষা করে সিডিসিকে এমন মাস্ক পরার সুপারিশ করেন বিশেষজ্ঞরা।

 

বিশেষজ্ঞরা সুপারিশ করলেও সিডিসি বলেছিল, শ্বাসযন্ত্র সুরক্ষায় কিছু পরিস্থিতি বিবেচনা করা যেতে পারে। বিশেষকরে কিছু নির্দিষ্ট ব্যক্তির যখন আরো বেশি সুরক্ষার প্রয়োজন হয় তখন সার্জিক্যাল মাস্ক পরা যেতে পারে।

সুপারিশের আগের সংস্করণে সিডিসি বলেছিল, পর্যাপ্ত সরবরাহ থাকা অবস্থায় সাধারণ মাস্কের পরিবর্তে শ্বাসযন্ত্রে ব্যবহার জন্য একটি এন নাইন্টি ফাইভ মাস্ক পরতে পারবে। মহামারীর শুরুর দিকে এন নাইন্টি ফাইভের সরবরাহ না থাকায় সাধারণ নাগরিকদের অসুস্থ ও কাশি না হলে মাস্ক পরার দরকার নেই বলে মত দিয়েছিল বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা ও ডিসিসি। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, এন নাইন্টি ফাইভ মাস্কটি সঠিকভাবে ব্যবহার করা হলে বায়ুবাহিত কণার ৯৫ শতাংশ পরিশুদ্ধ করতে সক্ষম।সূত্র:অনলাইন

 

পথিকটিভি/চৈতী