কখনো কোচ আবার কখনো নির্বাচকদের মন জয় করতে না পেরে ছিটকে গেছেন: ইমরুল কায়েস

Spread the love

কারণে অকারণে বারবার দল থেকে বাদ পড়েছেন। পারফরম্যান্স করেও দিনের পর দিন অপেক্ষায় থেকে হতাশ হয়েছেন। নামটি ইমরুল কায়েস। ওপেনিংয়ে তামিমের সঙ্গী ছিলেন দীর্ঘদিন। কিন্তু কখনো কোচ আবার কখনো নির্বাচকদের মন জয় করতে না পেরে ছিটকে গেছেন।

ইমরুল কায়েসের এটাই যেন নিয়তি। তা অবশ্য মেনে নিয়েছেন এই বাঁহাতি ব্যাটার। নিজের কাজটায় সবসময় মনোযোগী। খেলছেন বিসিএলের ওয়ানডে ফরম্যাট ইন্ডিপেনডেন্ট কাপেও। ব্যাটটাও হেসেছে। দুই ইনিংসে করেছেন ৭১ এবং ৬৯।

২০২৩ বিশ্বকাপে দলে সুযোগ হবে কি না তা টিম ম্যানেজমেন্ট বিবেচনা করবে। তার আগে নিজের কাজটা ঠিকঠাক করতে চান টাইগার ব্যাটার ইমরুল কায়েস। তাই ফিটনেস এবং পরফরম্যান্সের ওপর বেশি গুরুত্ব দিচ্ছেন। বিসিএলে টানা দুই ম্যাচে পেয়েছেন ফিফটি। নির্বাচকদের বিবেচনার প্রত্যাশায় তিনি। ইমরুলের মতে, যারা বিসিএলের ওয়ানডে ফরম্যাটে খেলেছেন আসন্ন আফগানিস্তানের বিপক্ষে খেলাটা সহজ হবে।

ইমরুল কায়েস বলেন, কঠোর পরিশ্রম করার পর যদি রানটা আসে তাহলে ভালো লাগে। দলের প্রয়োজনে রান করার দরকার ছিল। সেটা করতে পেরে ভালো লাগছে। আলহামদুলিল্লাহ।

ইস্ট জোনের হয়ে খেলেছেন তামিম ইকবালের সঙ্গে। মাঠে দু’জন জুটিও গড়েছেন। যা মনে করিয়ে দিয়েছে আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ারের শুরুর দিনগুলো। ২০২৩ ওয়ানডে বিশ্বকাপে ইমরুলকে দলে চেয়েছেন তামিম। সেটা নিয়ে ভাবছেন না। নিজের কাজটায় বেশি মনোযোগ তার।

টাইগার এই ওপেনার বলেন, ২০২৩ বিশ্বকাপ নিয়ে তামিম যা বলেছে, সেটা টিম ম্যানেজমেন্ট ভালো বুঝবে। এখন তো ২০২২ চলছে। আগে চলতি বছরটা শেষ করি।

তামিমের সঙ্গে বিসিএলে ওপেনিং করা নিয়ে এ ক্রিকেটার বলেন, তার সঙ্গে জাতীয় দলে অনেক খেলেছি। ২০১০ সালে যেভাবে জাতীয় দলে দুজনে মিলে খেলেছিলাম, সেটা অনুভব করেছি।

সামনে বিপিএল। এরপরই বাংলাদেশে আসবে আফগানিস্তান। ঘরোয়া আসরে ভালো করতে চান ইমরুল। তার মতে, বিসিএলের ওয়ানডে ফরম্যাটে খেলা ক্রিকেটাররা আফগানিস্তান সিরিজে সুযোগ পেলে সহজ হবে খেলা।

ইমরুল কায়েস বলেন, এ টুর্নামেন্টে যারা খেলেছে, তারা আফগানিস্তান সিরিজে সুযোগ পেলে ভালো করবে। এছাড়া বিপিএল তো আছেই।

এদিন ইমরুলের দারুণ পারফরম্যান্সে ইস্ট জোন জয় পেলেও, ফাইনালে উঠতে পরেনি তার দল।