প্রার্থী জেলে বাড়ি পুড়িয়ে দিলো দুর্বৃত্তরা

অনলাইন ডেস্ক: নওগাঁর পত্নীতলায় ঘোষনগর ইউনিয়নের সতন্ত্র প্রার্থী জেলে আটক থাকাবস্থার তার বাড়ি ঘর পুড়িয়ে দিয়েছে দুর্বৃত্তরা। ভোটের দিন সহিংসতার মামলায় গ্রেপ্তার চেয়ারম্যান প্রার্থী ফারজানা পারভীনের বাড়িতে আগুন দেয়া হয়েছে। শুক্রবার রাত ১২টার দিকে এ ঘটনা ঘটে।

আগুন দেওয়ার ঘটনায় পুড়ে গেছে বাড়ির সব আসবাবপত্র ও কয়েকটি মোটর সাইকেল। তবে কোন হতাহতের ঘটনা ঘটেনি।জানা গেছে,শুক্রবার মধ্যরাতে উপজেলার ঘোষনগর ইউনিয়নের কমলাবাড়ি এলাকায় ফারজানা পারভীনের বাড়িতে অগ্নিকাণ্ড ঘটে। ফারজানার পরিবারের দাবি, নির্বাচনী বিরোধের জেরে আগুন দেয়া হয়েছে। পত্নীতলা ফায়ার সার্ভিসের স্টেশন ইনচার্জ রায়হান ইসলাম গণমাধ্যমকে জানান, বাড়িটিতে পরিকল্পিতভাবে আগুন দেয়া হয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। তবে তাদের চেষ্টায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আনা গেছে। তদন্তের পরই আগুন লাগার প্রকৃত কারণ জানা যাবে।

ফারজানার পারভীনের প্রতিবেশীরা জানান, শুক্রবার রাত ১২টার দিকে হঠাৎ ফারজানার বাড়ীতে আগুনের শিখা দেখতে পাই। নির্বাচনকে কেন্দ্র করে মামলার কারণে তখন গ্রামে কোন পুরুষ ছিলো না। গ্রামের মহিলারা অনেক চেষ্টা করে আগুন নেভানোর চেষ্টা করেন। খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিস এসে কাজ শুরু করে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে।

এদিকে ঘোষনগর ইউপি নির্বাচনে পুলিশের গাড়ি পোড়ানোর মামলায় সতন্ত্র প্রার্থী ফারজানা পারভীন ও তার স্বামী মতিউর রহমানকে আটক করে পুলিশ গত বৃহস্পতিবার জেলা হাজতে পাঠায়। নির্বাচন কমিশন ষোঘনগর ইউনিয়নের ফলাফল স্থগিত করেছে।

উল্লেখ্য পঞ্চম দফায় গত বুধবার পত্নীতলার ১১ ইউপিতে ভোট অনুষ্ঠিত হয়। তবে সহিংসতার জেরে ঘোষনগরসহ ৪ ইউপির ফল স্থগিত করে নির্বাচন কমিশন। ভোটের রাতে ফলাফল ঘোষণাকে কেন্দ্র করে ঘোষনগর ইউনিয়নের কমলাবাড়ী কেন্দ্রে পুলিশের ওপর হামলা ও পুলিশ ভ্যানে অগ্নিসংযোগ ও অস্ত্র ছিনতাইয়ের ঘটনায় পুলিশ বাদী হয়ে ১১৩ জনের নাম উল্লেখ করে প্রায় আড়াই হাজার মানুষকে আসামী করে থানায় মামলা করে। মামলায় প্রধান অভিযুক্ত ঘোষনগর ইউনিয়ন পরিষদের স্বতন্ত্র (আওয়ামী লীগ বিদ্রোহী) চেয়ারম্যান প্রার্থী ফারজানা পারভীন ও তার স্বামী মতিউর রহমানসহ ৪ জনকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ কোর্ট হাজতে পাঠিয়েছে।

 

PothikTV/Choity