ব্রাহ্মণবাড়িয়া যমুনা হাসপাতালের ডিপ্লোমা নার্স এর সরকারি নিয়োগ হওয়ায় বিদায় সংবর্ধনা

হালিমা খানম, ব্রাহ্মণবাড়িয়াঃ গতকাল ৬ ডিসেম্বর রোজ সোমবার সন্ধ্যা ৭ টাই ব্রাহ্মণবাড়িয়া যমুনা হাসপাতাল এন্ড ডায়াগনস্টিক সেন্টারের আয়োজনে যমুনা হাসপাতালের ডিপ্লোমা নার্সদের সরকারি চাকরির নিয়োগ হওয়ায় বিদায় সংবর্ধনা ও সম্মাননা অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়েছে। যমুনা হাসপাতালের চেয়ারম্যান মোঃ ইমরান খানের সভাপতিত্বে এবং এইচ এম জাহিদের সঞ্চালনায় উক্ত সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর হাসপাতালের গাইনি চিকিৎসক ডাঃ তাসনুভা সাঈদ।

বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন -ডাঃ আকিভ জাবেদ রাফি,পথিক টিভির চেয়ারম্যান এবং ব্রাহ্মণবাড়িয়া পৌর ডিগ্রি কলেজের ইংরেজি প্রভাষক রাবেয়া জাহান তিন্নি, পথিক টিভির ব্যবস্থাপনা পরিচালক লিটন হোসাইন জিহাদ, ডাঃ মেহেদী হাসান সোহাগ,ডাঃ ইনজামামুল হক সিয়াম,যমুনা হাসপাতালের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মোঃজুলফিকার আলী,ডাঃ সাইফুজ্জামান। ওই হাসপাতালের ডিপ্লোমা নার্সদের সরকারি চাকরি হওয়ায় তাদের বিদায় সংর্ধনা ও সম্মাননা দিয়ে অন্যন্য দৃষ্টান্ত স্থাপন করলেন ব্রাহ্মণবাড়িয়া যমুনা হাসপাতাল।ওই সময় সিনিয়র ডিপ্লোমা নার্স শামিমা আক্তারের চট্রগ্রাম মেডিকেল কলেজে সরকারি চাকরির নিয়োগ হওয়ায় অত্র প্রতিষ্ঠান থেকে তাকে সম্মাননা ও চেক প্রদান করা হয়।

সিনিয়র ডিপ্লোমা নার্স শামিমা আক্তার হাসপাতালে শুরু থেকে ই দীর্ঘ দিন যাবত এখানে চাকরি করে আসছেন এবং রুগীদের সুনামের সাথে সেবা দিয়েছেন।উনার বিদায় উপলক্ষে হাসপাতালের সকল ডাক্তার স্ট্যাফ নার্স সহ সবাই আবেগে আপ্লূত হয়ে পড়ে।

উক্ত অনুষ্ঠানে প্রতিষ্ঠানের ব্যবস্থাপনা পরিচালক জুলফিকার আলী বলেন- শামীমার মতো আরো যারা আছেন আমাদের হাসপাতালের নার্স নিজেদের কাজের মাধ্যম দক্ষতার সাক্ষর রাখবে এবং উন্নতি লাভ করবে অন্য কোথাও সরকারি চাকরি হলে সম্মানের সাথে বিদায় জানাব এতে কোনো কার্পন্য করব না।

এমন কাজ সব সময় অব্যাহত রাখব। অনুষ্ঠানের অতিথিগন তাদের বক্তব্যে বলেন ডাক্তারী একটা মহান পেশা এবং হাসপাতালের নার্স ডাক্তার রাই রোগীদের তাদের জীবনের ঝুকি নিয়ে সেবা দিয়ে যাচ্ছেন। আজকের এই বিদায় সংর্ধনা অনুষ্ঠানে যমুনা হাসপাতালের ডিপ্লোমা নার্স এর সরকারি চাকরি হওয়ায় এতো সুন্দর করে বিদায় জানিয়েছেন এবং নার্সদের তাদের কাজের মুল্যায়ন করেছেন এই জন্য প্রতিষ্ঠানটি কে সাদুবাদ জানাই।

অত্র প্রতিষ্ঠানের চেয়ারম্যান এবং প্রোগ্রামের সভাপতি মোঃ ইমরান খান তার সমাপনী বক্তব্যে বলেন- চট্রগ্রাম মেডিকেল কলেজে আমাদের নার্স শামীমার সরকারি চাকরি টা খুশির খবর হলেও যমুনার জন্য একটা কষ্টের কারন তার মতো নমনীয় ভদ্র একজন সেবিকা যমুনা হাসপাতাল সব সময় মনে রাখবে। এছাড়া ও অন্যান্য দের মধ্যে আরো উপস্থিত ছিলেন প্রতিষ্ঠানের পরিচালক খায়ের মিয়া,সাব্বির আহমেদ,নাসির আহমেদ, সাইফুল ইসলাম রিপন সহ হাসপাতালের সকল শ্রেনীর কর্মকর্তা কর্মচারি বৃন্দ।