কুমিল্লার নাঙ্গলকোটে ৮টি ইউপি নির্বাচনে নৌকা প্রতীক মনোনয়ন ঘিরে বিব্রত তৃনমূল

মশিউর রহমান সেলিম, কুমিল্লা: সকল জল্পনা কল্পনা, নানান সমীকরণ ও নাটকীয়তায় ভরা কুমিল্লার নাঙ্গলকোট উপজেলার ১৬টি ইউপির মধ্যে ৮টি ইউপি নির্বাচনে প্রতিটি ইউপিতে দীর্ঘ সম্ভাব্য প্রার্থী তালিকা দীর্ঘ থেকে আরও দীর্ঘ হচ্ছে। দলীয় হাইকমান্ড ৪টি ইউপিতে এবং স্থানীয় দলীয় কাউন্সিলে নৌকা প্রার্থীর নাম ঘোষনা করলেও সবক’টি ইউনিয়নে নৌকা প্রার্থীর বিরুদ্ধে একাধিক স্বতন্ত্র সম্ভাব্য প্রার্থী তালিকায় উঠে আসায় বিব্রত আ’লীগের তৃণমূল নেতা-কর্মী ও সাধারণ ভোটাররা। আগামী ৫ জানুয়ারী ভোটকেন্দ্র গুলোতে গণতান্ত্রিক পরিবেশ বজায় থাকলে ভোটের ফলাফলে শীর্ষ প্রার্থীদের কপাল পুড়তে পারে বলে আশংকা করছেন রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা।
উল্লেখ্য দেশব্যাপী ৫ম ধাপের ইউপি নির্বাচনের দিনক্ষণ ৫ জানুয়ারী ২০২২ নির্বাচন কমিশন তফসিল ঘোষনা করলে এ উপজেলা সর্বত্র বেজে উঠে নির্বাচনী ঢামাঢোল। শুরু হয়েছে নেতা-কর্মীদের মাঝে দলীয় মনোনয়ন পেতে দৌড় ঝাপ। আসন্ন ৮টি ইউপি নির্বাচনে আ’লীগের দলীয় মনোনয়নে নাটকীয়তায় বিব্রত আ’লীগের তৃনমূল। বাঙ্গড্ডা ইউপিতে চেয়ারম্যান পদে আ’লীগের দলীয় হাইকমান্ড ইউপি যুবলীগের সভাপতি ও এলাকার জনপ্রিয় যুবনেতা আলহাজ¦ সাইফুল ইসলাম এবং ইউপির দলীয় কাউন্সিলে সাবেক চেয়ারম্যান ইয়াকুব আলী মজুমদারের নাম নৌকা প্রার্থী হিসাবে উঠে আসা ও আ’লীগ নেতা মহসিন আলম, হুমায়ুন কবির মজুমদার, বর্তমান চেয়ারম্যান শাহজাহান মজুমদার এবং ব্যবসায়ী মোঃ কামাল হোসেন মজুমদারের নামে স্বতন্ত্র সম্ভাব্য প্রার্থীদের নাম শুনা যাচ্ছে। পেরিয়া ইউপিতে আ’লীগের হাইকমান্ড সাবেক চেয়ারম্যান আলহাজ¦ আবদুল হামিদ ও স্থানীয় আ’লীগ দলীয় কাউন্সিলে বর্তমান চেয়ারম্যান হুমায়ুন কবির মজুমদারের নাম নৌকা প্রার্থী হিসাবে ঘোষনা আসা ও আ’লীগ নেতা মোস্তাক হোসেন, খোরশেদ আলম, মাষ্টার স্বপন ও সাবেক চেয়ারম্যান সাংবাদিক শহিদ উল্লাহ মিয়াজী নামে স্বতন্ত্র সম্ভাব্য প্রার্থীদের নাম গুঞ্জন শুনা যাচ্ছে। মৌকরা ইউপিতে দলীয় হাইকমান্ড সাবেক চেয়ারম্যান সাইফুদ্দিন আলমগীরকে নৌকার প্রার্থী হিসাবে ঘোষনা করা হয়েছে। অপরদিকে বর্তমান চেয়ারম্যান আবু তাহের, শিক্ষক নেতা আবুল খায়ের আবু এবং সাবেক উপজেলা ছাত্রলীগ সভাপতি ও এলাকার জনপ্রিয় ছাত্রনেতা আবদুর রাজ্জাক সুমনের নাম স্বতন্ত্র সম্ভাব্য প্রার্থী হিসাবে উঠে এসেছে। মক্রবপুর ইউপিতে আ’লীগ দলীয় হাইকমান্ড নৌকা মাঝি হিসাবে ডাঃ জাহাঙ্গীর আলমের নাম ঘোষনা করলেও তৃনমূলের পছন্দ ও জনপ্রিয় নেতার মোঃ মোবারক খান এবং বর্তমান চেয়ারম্যান মূর্তজা চৌধুরীসহ আরও ২/৩ জনের নাম স্বতন্ত্র সম্ভাব্য প্রার্থী তালিকায় শুনা যাচ্ছে। হেসাখাল ইউপিতে দলীয় হাইকমান্ড নৌকা প্রাথী হিসাবে অধ্যাপক ইকবাল বাহার মজুমদারের নাম ঘোষনা করে কিন্তু ইউপির জনপ্রিয় ব্যক্তিত্ব ও আ’লীগ নেতা মোঃ শামছুল আলম, সাবেক চেয়ারম্যান মাজহারুল হক, আ’লীগ নেতা ইয়াকুব আলী রায়হান, বর্তমান চেয়ারম্যান জালাল উদ্দিন ভূঁইয়া, দুই ব্যবসায়ী নাছির উদ্দিন ও জাহাঙ্গীর আলমের নাম স্বতন্ত্র সম্ভাব্য প্রার্থী হিসাবে গুনঞ্জন রয়েছে। ঢালুয়া ইউপিতে দলীয় হাইকমান্ড নৌকার প্রার্থী হিসাবে বর্তমান চেয়ারম্যান নাজমুল হাসান ভূঁইয়া বাছিরের নাম ঘোষনা করেন কিন্তু তৃনমূল আওয়ামী নেতা-কর্মীদের পছন্দ গোলাম মাওলা ছুট্টু। এছাড়াও আরও ৩/৪ জনের নাম স্বতন্ত্র সম্ভাব্য প্রার্থী তালিকায় শুনা যাচ্ছে। বক্সগঞ্জ ইউপিতে আওয়ামী দলীয় হাইকমান্ড নৌকা প্রার্থী হিসাবে আ’লীগ নেতা শহিদ উল্লাহ পাটোয়ারীর নাম ঘোষনা করলেও বর্তমান চেয়ারম্যান অহিদুর রহমানসহ আরও ৩/৪ জনের নাম সম্ভাব্য স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসাবে শুনা যাচ্ছে। সাতবাড়িয়া ইউপিতে বর্তমান চেয়ারম্যান কাজী ইয়াছিনের নৌকা প্রার্থী হিসাবে শুনা গেলেও দলীয় হাইকমান্ড ও আওয়ামী তৃনমূলে প্রার্থীতা ঘিরে নানাহ গুঞ্জন চলছে। তবে আরও ৩/৪ জনের নাম স্বতন্ত্র সম্ভাব্য প্রার্থী তালিকায় উঠে এসেছে।
অপরদিকে নির্বাচন কমিশনের তফসিল অনুযায়ী এ উপজেলার ৮টি ইউপি নির্বাচনে ভোট গ্রহণ ৫ জানুয়ারী ২০২২, মনোনয়ন জমার শেষ তারিখ ৭ ডিসেম্বর ২০২১, প্রার্থীতা প্রত্যাহার ১৫ ডিসেম্বর ২০২১, মনোনয়ন পত্র যাচাই-বাছাই ৯ ডিসেম্বর ২০২১, আপীল শুনানী ১০-১২ ডিসেম্বর ২০২১, প্রতীক বরাদ্দ ১০ ডিসেম্বর ২০২১ নির্ধারন করা হয়েছে। আগামী ২/১ দিনেরমধ্যে সংরক্ষিত মহিলা মেম্বার ও পুরুষ মেম্বার পদে দলীয় মনোনয়ন চুড়ান্ত করে ঘোষনা করার প্রস্তুতি চলছে। এছাড়া রাজনৈতিক বিরোধী দলগুলোর প্রার্থীতা নিয়ে এখনও কোন তথ্য পাওয়া যায়নি। তবে সংরক্ষিত মহিলা মেম্বার ও সাধারণ সদস্য পদে গণতান্ত্রিকভাবে উন্মুক্ত নির্বাচণের দাবী জানিয়েছেন অনেকেই।
এ ব্যাপারে নাঙ্গলকোট উপজেলা স্থাণীয় প্রশাসনের একাধিক সূত্র জানায়, এ উপজেলার ৮টি ইউপি নির্বাচন ঘিরে আমাদের সকল প্রস্তুতি রয়েছে। এলাকার শান্তি শৃঙ্খলা বজায় রাখা সহ নিরপেক্ষ ও শান্তিপূর্ন নির্বাচন অনুষ্ঠানে লক্ষ্যে যা যা করার প্রয়োজন আমরা তা করবো।