রাজনগরের কামারচাকে প্রার্থী বদলে হ্যাটট্রিক, এবার নৌকা পেলেন আতাউর

মোঃ আজিজুল ইসলাম, মৌলভীবাজার প্রতিনিধি: মৌলভীবাজারের রাজনগর উপজেলার কামারচাক ইউনিয়নে তিনবার নৌকা প্রার্থী বদল করেছে আওয়ামীলীগের মনোনয়ন বোর্ড। থানায় মামলাসহ নানা অভিযোগ থাকায় নজমুল হক সেলিমের দলীয় মনোনয়ন বাতিল করা হয়। ইউপি চেয়ারম্যান প্রার্থী হিসেবে দুজনকে মোট চারবার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা স্বাক্ষরিত চিঠি দেওয়া হয়। সর্বশেষ আওয়ামী লীগের প্রার্থী হিসেবে আতাউর রহমানকে মনোনয়ন দেওয়া হয়েছে। স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে রাজনগর উপজেলার কামারচাক ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগ থেকে গত ২৩ নভেম্বর মনোনয়ন প্রদান করা হয় বর্তমান চেয়ারম্যান নজমুল হক সেলিমকে। পরবর্তীতে ২৪ নভেম্বর তাকে পরিবর্তন করে দলীয়ভাবে মনোনয়ন প্রদান করা হয় আতাউর রহমানকে। ২৫ নভেম্বর আবারও সে মনোনয়ন পরিবর্তন করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার স্বাক্ষরিত দলীয় মনোনয়ন প্রদান করা হয় নজমুল হক সেলিমকে। সেদিনই নজমুল হক সেলিমের বিরুদ্ধে সাম্প্রদায়িকতার মদত, দলে অনুপ্রবেশ এবং মামলাসহ নানা অভিযোগ ওঠে এবং আবারও প্রার্থীতা পরিবর্তন করে আতাউর রহমানকে চুড়ান্ত মনোনয়ন দেওয়া হয়।এদিকে কামারচাক ইউনিয়নে বার বার মনোনয়ন পরিবর্তন ব্যাপক আলোচনা-সমালোচনার জন্ম দিয়েছে। তবে মনোনয়ন পেয়ে জয়ের ব্যাপারে আত্মবিশ্বাসী আতাউর রহমান। আতাউর রহমান জানান, ‘আমি দলের আদর্শে এবং নেতৃবৃন্দের প্রতি আস্থাশীল ছিলাম-আছি, দলের সিদ্ধান্তই আমার সিদ্ধান্ত। সবকিছুর পর কোন অনুপ্রবেশকারী বিতর্কিত নেতাকে নৌকা প্রতিক না দিয়ে আমাকে দেয়ায় আমি দলের প্রতি কৃতজ্ঞ। নৌকা আমাদের আদর্শ এবং অনুভুতির নাম। মানুষ ব্যালটের মাধ্যমে আমাকে নির্বাচিত করবে বলে আমি বিশ্বাস করি। নৌকার জয় সুনিশ্চিত। তিনি আরও বলেন, ‘নজমুল হক সেলিমের মনোনয়ন দেয়া হয় গত ২৩ নভেম্বর। তাঁর বিরুদ্ধে শিবিরের সাবেক নেতা, সাম্প্রদায়িকতায় মদদানের অভিযোগ দলীয় সভানেত্রী শেখ হাসিনা বরাবরে কামারচাক ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের নেতারা অভিযোগ দিয়েছেন। বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমেও সেসব অভিযোগ প্রকাশিত হয়। সার্বিক পরিস্থিতি বিবেচনা করে দলীয় হাইকমান্ড একজন নিবেদিত কর্মী হিসেবে শেষ পর্যন্ত আমার উপরই দল ভরসা রেখে আমাকে মনোনয়ন দিয়েছেন।