Spread the love

জাকির হোসেন,ব্রাহ্মণবাড়িয়া : তথ্য প্রযুক্তির যুগে উন্নয়নের ছোয়া লেগেছে প্রায় সকল ক্ষেত্রেই, পাল্টে গেছে গ্রাম থেকে শহর। শুধু হারিয়ে যাচ্ছে আমাদের বিনোদনের জায়গাগুলি। শহরের একমাত্র জায়গা টেংকের পাড়,যেখানে নি:শ্বাস নিতে আসে শহরের সকল পেশা,শ্রেনীর মানুষ কিন্তু ময়লা আর আবর্জনায় জনগণের দুঃখ আর দূর্ভোগের স্থানে পরিণত হয়েছে সেই টেংকের পাড়।

সরেজমনি ঘুরে দেখা যায়,পৌরসভার ময়লা রাখার যে জায়গা করা হয়েছে তা রাস্তা পর্যন্ত খেয়ে নিয়েছে,দুদূর্গন্ধে রাস্তায় চলাফেরা প্রায় অসহনীয় হয়ে পড়েছে।যেখানে রোজ সন্ধায় জেলার সকলের মিলন মেলায় পরিণত হয়, অন্নদা স্কুল, বি-বাড়িয়া স্কুল সহ  আশেপাশে বেশ কিছু শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান সহ অসংখ্য হাসপাতাল গড়ে উঠেছে। সেই গুরুত্বপূর্ন স্থানটিতে অপরিকল্পিতভাবে ময়লার জায়গা করা হয়েছে।

এসব ময়লা ও দূর্গন্ধের কারনে কোমলমতি শিক্ষার্থী সহ সকলের মানসিক ও শারীরিক নেতিবাচক প্রভাব পড়বে বলে মনে করছে সচেতন মহল।

নাদিম মিয়া নামক ফার্মিসীর এক ব্যক্তির ভাষ্য মতে অপরিকল্পিত ভাবে এসব কাজ করে শহরটাকে শেষ করে দিচ্ছে। চলার মত অবস্থা আর নেয়। বাধ্য হয়ে এই রাস্তা দিয়া আসা যাওয়া করতে হয়।

মাননীয় মেয়র ও ডিসি মহোদয়ের বিশেষ দৃষ্টি আকর্ষণ করে এক পথচারী দুর্বল তরল বর্জ্য ব্যবস্থাপনা, ময়লা প্রতিদিন মাটি চাপা না দেওয়া এবং গ্রিনহাউজ গ্যাস নিঃসরণের কারণে এ ভাগাড় এখন দুশ্চিন্তার কারণ হয়ে উঠেছে।দয়া করে এখান থেকে ময়লা যেন না ফেলা হয় সেই ব্যবস্থা করে দেন।