ভুল রিপোর্টের জন্য ব্রাহ্মণবাড়িয়ার হাসপাতালগুলোতে ঘটছে অহরহ প্রাণহানি

Spread the love

নিজস্ব প্রতিবেদনঃ চাকচিক্যময় প্রতারণার এক নতুন রুপ ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বিভিন্ন প্রাইভেট হাসপাতাল,রোগিকে বেশি বেশি পরিক্ষা দেওয়া সহ ভুল রির্পোট প্রদান করা হচ্ছে অহরহ এমনটাই অভিযোগ করেছে ভুক্তভোগি বেশ কিছু মানুষ।

২৩মে জুন সন্তান জন্মদান করতে এসে  ব্রাহ্মণবাড়িয়া বেসরকারী হাসপাতাল আল খলিলে অপারেশন থিয়েটারে যোয়াত ভূইয়ার মেয়ে রিক্তা  নামের এক রোগীর অপারেশন অসম্পূর্ণ রেখেই সাইমা রহমানা ইমা নামের এক  ডাক্তার চলে গিয়েছে বলে  বিভিন্ন গনমাধ্যমে সংবাদ প্রচারিত হয়েছে।

খুঁজ নিয়ে জানা যায়  ডাক্তার সায়মা রহমান ইমা  অপারেশন অস্পূর্ণ রেখেই আধ ঘন্টা পর  উটি থেকে বের হয়ে যার। পেট কাটা অবস্থায় রোগী দীর্ঘ তিন ঘন্টা হাসপাতালে ছিলেন।  তারপর সন্ধ্যা ৬ টার দিকে আল খলিলের ম্যানাজার রোগীকে নিয়ে ঢাকা মেডিকেলে যায়।

এ বিষয়ে সাইমা রহমান জানায়,রোগিকে ওটিতে নেয়ার পর যখন পেট কাটা হয় তখন দেখতে পাই রোগির কন্ডিশন আল্ট্রারির্পোটের সাথে মিল নেই। গর্ভবতী মহিলার গর্ভফুল জরায়ুর মুখের  উপরে অবস্থিত এবং মুত্রতলীর সাথে সংযুক্ত অর্থাৎ placenta previa with bladder invasion. এইরকম অপারেশন মূত্রথলি বিশেষজ্ঞকে সাথে নিয়ে করতে হয় যেটা মেডিকেল কলেজ ছাড়া করা সম্ভব নয়।

তিনি আরো বলেন, ডাক্তার কৌশিকের আল্ট্র রির্পোট ভুল ছিল বিদায় এ পরিস্থিতির স্বীকার হতে হয়েছে। খারাপ পরিস্থিতি দেখেই রোগিকে আমি ঢাকা রেফার করে দেয়।

ডাক্তার কৌশিক বলেন , আমি আল্ট্রা করেছি সকালে, অপরারেশন করা হয়েছে বিকালে ।চারপাচ ঘন্টায় রোগির অবস্থা পরিবর্তন হতে পারে।  আমি রোগিকে দেখে যা পেয়েছে তাই রির্পোটে উল্লেখ করেছি ।

ডাক্তার কৌশিকের ভুল আল্ট্রা রির্পোটের কারনে বেকায়দায় পড়েছে অন্যনরা ডাক্তাররা। এ বিষয়ে করা হয়েছে তদন্ত কমিটি।

রিক্তার অপারেশনের ব্যাপারে যোগাযোগ করা হলে আল খলিল হাসপাতালের  সংশ্লিষ্টরা কর্তৃপক্ষ কথা বলতে রাজি হননি।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া বেশকিছু বেসরকারী হাসপাতালে সেবার মান ভালো আবার কিছু হাসপাতালে রয়েছে বিভিন্ন ধরনের অনিয়ম। কিছু ডাক্তারের অনিয়ম ও ভুল রির্পোটের জন্য বেকায়দায় পড়তে হচ্ছে অন্যন্য ডাক্তারদের। বেসরকারী হাসপাতাল গুলিতে নিয়মিত প্রশাসনের নজরদারী প্রয়োজন বলে মনে করছেন সচেতন মহল।