৬০ বছরের পুরাতন কালিকচ্ছের ছুলামদ উৎপাদনের কারখানায় অভিযান : গ্রেপ্তার-৩

মোহাম্মদ মাসুদ:   ব্রাহ্মণবাড়িয়ারা সরাইলে ছুলামদ কারখানায় অভিজান চালিয়ে ৯০ লিটার মদ সহ ৩ জনকে গ্রেফতার করেছে সরাইল থানা পুলিশ। আজ সোমবার দুপুরে উপলের কালিকচ্ছ ইউনিয়নের ঋষি বাড়ির ছুলামদ উৎপাদনের কারখানায় এস আই বিল্লাল হোসেনের নেতৃত্বে সরাইল থানা পুলিশ অভিজান চালায়। গ্রেফতারকৃতরা হলেন, কস্তরি রবি দাস (৫০), তার স্ত্রী অঞ্জনা রবি দাস (৩৫) ও মেয়ে চম্পা রবি দাসকে (১৮)। পুলিশের আগমন টের পেয়ে আগেই পালিয়ে গেছে আরো ৪-৫টি পরিবারের সদস্যরা।

৬০ বছরের পুরাতন কালিকচ্ছের ছুলামদ উৎপাদনের কারখানায় অভিযান চালিয়েছে । আজ সোমবার দুপুর ১টা থেকে বিকাল সাড়ে ৩টা পর্যন্ত চলে অভিযান। অভিযানকালে মাটির নীচ থেকে মদ তৈরীর সরঞ্জাম,কন্টিনসহ ৯০ লিটার মদ উদ্ধার করা হয়।

দীর্ঘ ১০-১২ বছর আলোচিত এই মদ উৎপাদন কারখানায় পুলিশি অভিযানে ওই এলাকার সাধারণ মানুষ খুশি। কিন্তু চেহারা কালচে হয়ে গেছে উৎপাদন কাজের সাথে গোপনে জড়িত বর্তমান ও সাবেক জনপ্রতিনিধিসহ অনেক প্রভাবশালী ব্যক্তির।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শী স্থানীয়রা জানায়, দীর্ঘ ৬০ বছরেরও অধিক সময় ধরে কালিকচ্ছের এই বাড়িতে ছুঁলামদ উৎপাদন ও বাজারজাত করণের বিষয়টি অনেকটা ওপেন সিক্রেট। এখানকার মদ স্থানীয় এক শ্রেণির লোকদের মনোরঞ্জনে ব্যবহার হয়। সেই সাথে আসক্ত হয়ে ধ্বংস হচ্ছে যুব সমাজ। দিনে রাতে সময়ে অসময়ে মদ্যপদের মাতলামি আশপাশের অনেক শিক্ষার্থী ও মহিলাদের বিব্রত করছে। সুস্থ্য পরিবার ও সমাজ গঠনের লক্ষ্যে স্থানীয় যুব সমাজ উৎপাদন বিক্রয়ে বাঁধা দিয়েছে। উল্টো তাদেরকে হামলা মামলার শিকার হয়ে কারাবরণ করতে হয়েছে।

বাণিজ্যিক উদ্যেশ্যে স্থানীয় কিছু প্রভাবশালী ব্যক্তি মাদকমুক্ত নয় যুক্ত সমাজ গঠনে কাজ করার এন্তার অভিযোগ রয়েছে। একটি গ্রƒপ সংখ্যালঘুর ঝড় তুলে ফায়দা লুটার গভীর ষড়যন্ত্র করেছে একাধিকবার। ৮ বছরেরও অধিক সময় ধরে এখানে মদ উৎপাদন করে ৯টি ইউনিয়ন সহ দেশের কয়েকটি জেলায় বিপনণের বিষয়টি মাসিক আইন-শৃঙ্খলা সভায় চিৎকার করে বলে আসছিলেন সরাইল প্রেসক্লাবের প্রতিনিধিরা।