ঈক কি সবার জন্য খুশী নিয়ে আসে?

Spread the love

রাবেয়া জাহানঃ রমজানের ঐ রোজার শেষে এলো খুশির ঈদ। কিন্তু এই ঈদ কি সবার জন্য খুশি নিয়ে আসে। করোনা বিপর্যয়ে অগণিত মানুষ বেকার হয়েছে, অনেকে হারিয়েছে তাদের টিকে থাকার শেষ সম্বলটুকু। খেটে খাওয়া আত্মসম্মানি মানুষগুলো আজ লড়াই করছে দু মুঠো ভাতের জন্য।

গরিবের পল্লিতে ঈদের আমেজ একেবারেই ফিকে। মনির হোসেনকে সাথে নিয়ে বিস্তারিত জানাচ্ছে আইরিন হক।

ঈদকে কেন্দ্রর করে শতো প্রতিকূলতার মাঝেও দেশের বিভিন্ন জেলা থেকে ছুটছে মানুষ যার যার নিজ বাড়িতে। নতুন কাপড় আর খাবার না থাকলেও স্বজনদের সাথে একসাথে ঈদ করতে পারাই যেন এক মহাউৎসব। তাইতো জীবনের ঝুকি নিয়ে লক্ষ্য মানুষের ভীড়ে ছুটছে মানুষ নিজ নিজ নিড়ে।

একটা শ্রেণির মানুষ রয়েছে যারা কারো কাছে সাহায্যের জন্য যেতে পারে না, সরকারি সাহায্যের জন্য লাইনে দাড়াতেও বিব্রত হয়,। অথচ নিন্মমধ্যবিত্ত শ্রেণীর এই মানুষগুলো সবচেয়ে বেশি দুর্বিষহ জীবন যাপন করছে। তিনবেলা খাবার যেখানে জুটেনা, সেখানে আর ঈদের আমেজ কিসের। এদের মধ্যে কেউ কেউ পরিচিত স্বজনদের বাড়িতে কাজ করে, জীবিকা নির্বাহ করছে।

তবে অভাব অনটন, দুঃখ দুর্দশা আর করোনা সংক্রমণ যাই ঘটোক না কেন , যে কোনো পরিস্থিতিতে যুগ যুগ ধরে মানুষ এই উৎসব উদযাপন করছে। করোনা তার রূপ যতোই পরিবর্তন করোক না কেন,মানুষ মৃত্যুর ঝুকি নিয়ে প্রিয়জনদের কাছে ফিরছে ঈদের উৎসব উদযাপন করবে বলে। ঈদের উৎসব শ্রেণী ভেদাভেদ জানে না। ধনী গরিব সবার জন্যই এই ঈদ চরম আনন্দের এবং চরম কাঙ্খিত।