তিতাসে গৃহবধূকে ধর্ষণের ভয় দেখিয়ে দুর্ষর্ধ ডাকাতিঃ ১৭ লক্ষাধিক টাকার মালামাল লুট

হালিম সৈকত,  কুমিল্লা:

কুমিল্লার তিতাস উপজেলার চর রাজাপুর গ্রামে দুর্ধর্ষ ডাকাতির অভিযোগ পাওয়া গেছে।
ঘটনাস্থলে গিয়ে জানা যায়,  ৮ ফেব্রুয়ারি দিবাগত রাত দেড়টার দিকে চর রাজাপুর বেপারী বাড়িতে দেশীয় অস্ত্রের মুখে ১২-১৫ জনের একটি ডাকাত দল ঐ বাড়িতে ডাকাতি করে।
এসএস পাইপের গেইটের মালয়েশিয়ান তালাটি তরল জাতীয় কিছু দিয়ে খুলে খুব সহজে ঘরের ভেতর প্রবেশ করে।
 অস্ত্রের মুখে সাইফুল ইসলামের স্ত্রী গৃহবধূ  রোজিনাকে গণধর্ষণের হুমকি দিয়ে প্রতিটি কক্ষ  থেকে তালা ভেঙ্গে দামী সব জিনিসপত্র নিয়ে যায়। এই বিষয়ে হাবিবুর রহমান প্রকাশ হবির ছেলে মালয়েশিয়া প্রবাসি সাইফুল ইসলাম বলেন, ডাকাতরা ঘরে ঢুকেই আমাদের সকলের হাত, পা,  মুখ দড়ি ও কস্টিপ দিয়ে বেঁধে ফেলে। ডাকাত দল  ঘরে থাকা নগদ ৪ লক্ষ টাকা,  ৭ টি স্বর্ণের চেইন যার ওজন ১০ ভরি,  ৪ জোড়া কানের দুল প্রায় ৪ ভরি ওজন,  ২ টি স্বর্ণের আংটি প্রায় ১ ভরি ওজন, ৪ বিদেশী মোবাইল যার মূল্য প্রায় ২ লক্ষ টাকা, মালয়েশিয়া থেকে আনা ১ টি লেপটপ মূল্য ৬৫০০০/ টাকা  নিয়ে যায়। সব মিলিয়ে প্রায় ১৭ লক্ষাধিক টাকার মূল্যবান জিনিসপত্র নিয়ে যায়।
বাড়ির মালিক হাবিবুর রহমান হবি বলেন,  আমার পুত্রবধূকে জিম্মি করে রাম দা,  ছুরি ও কাওয়াল দিয়ে ভয় দেখিয়ে সব নিয়ে নিঃস্ব করে গেছে আমাদের । এখন আমার কি হবে? দেশে কি আইনশৃঙ্খলা নাই?
সরেজমিনে দেখা যায়, ডাকাত দল প্রতিটি ঘরের তালা ভেঙে সব নিয়ে গেছে। পরিবারটির ব্যাপক ক্ষতিসাধিত হয়েছে।
এখনও তিতাস থানায় কোন অভিযোগ কিংবা ডায়েরি হয়নি।  তবে শীঘ্রই জিডি করা হবে বলে জানান হাবিবুর রহমানের ছেলে সাইফুল ইসলাম।
এর আগেও  একই কায়দায় তিতাসে কয়েকটি ডাকাতির ঘটনা ঘটে।
এই বিষয়ে তিতাস থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সৈয়দ মোহাম্মদ আহসানুল ইসলাম বলেন,  এই ধরনের ঘটনা ঘটেছে আমার জানা নেই।  কেউ কোন অভিযোগ বা ডায়েরি করেনি। তবে আমি নিজেই ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করব।
পথিকটিভি/ এ আর