বঙ্গোপসাগর থেকে জাল চুরির অপরাধে ১২ রোহিঙ্গা গ্রেফতার

বঙ্গোপসাগর থেকে জাল চুরির অপরাধে ১২ রোহিঙ্গা গ্রেফতার
বঙ্গোপোসাগরে জেলেদের জাল চুরির অপরাধে ১২ জন রোহিঙ্গাকে গ্রেফতার করেছে বাংলাদেশ পুলিশ।এই সময় একটি মাছ ধরার ট্রলারও জব্দ করা হয়েছে।গত বুধবার রাতে আলীপুর মৎস্য অবতরণ কেন্দ্র থেকে তাদের সবাইকে গ্রেফতার করা হয়।এরা হলো রাজমাঝি, ফাহিম, আরিফ, সেলিম, রফিক, নূর, আবদুল্লাহ, জুবায়ের, আবদুর রহমান,শরীফ ও আলম সহ আরও অনেককে। গ্রেফতারকৃতদের বাড়ি কক্সবাজারের কুতুপালংয়ের বিভিন্ন রোহিঙ্গা ব্লকে।তারা বাংলাদেশ সরকারের রেজিষ্টারভুক্ত রোহিঙ্গা নয় বলে মহিপুর থানা সূত্রে এমন তথ্য জানা গেছে।
 
পুলিশ ও স্থানীয় জেলেদের সূত্রে জানা যায় যে, সাগরে ইতোমধ্যেই জাল চুরির হিরিক পড়েছে। বেশ কয়েকদিন ধরে এই রোহিঙ্গারা জাল চুরি করে আসছে। বুধবার সন্ধ্যায় বঙ্গোপসাগরের সোনার চর লাইন পয়েন্ট থেকে জাল চুরি করে নিয়ে যাওয়ার সময় তাদের সবাইকে আটক করে জেলেরা।পরে রাত এগারোটার দিকে তাদের সবাইকে পুলিশে সোপর্দ করে। এই ঘটনায় মহিপুরের মৎস্য ব্যবসায়ী আল আমিন বাদী হয়ে মহিপুর থানায় একটি মামলা দায়ের করেছিলেন।
 
মহিপুর থানার ওসি খন্দকার আবুল খায়ের সাংবাদিকদের জানান যে, রোহিঙ্গা চোরেরা প্রত্যেকে কম বেশী বাংলা বলতে পারে। তাদেরকে আদালতে সোপর্দ করা হচ্ছে।
 
এইদিকে, সাগরে জাল চুরি বেড়ে যাওয়ায় ইতিমধ্যেই জেলেদের মধ্যে জাল চুরির আতংক অনেক বেড়েছে। এক সময় ডাকাতের আতংক এখন আবার নতুন করে জাল চুরির ভয়ে তারা ভীত হয়ে পড়েছে বলে একাধিক জেলেরা এমন তথ্য জানিয়েছেন।