মাদকের সাথে কেউ জড়িত থাকলে যুবলীগ করতে পারবে নাঃ কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক নিখিল

Spread the love
হালিম সৈকত,  কুমিল্লা:    হোমনা উপজেলা আওয়ামী যুবলীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন ২২ ডিসেম্বর মঙ্গলবার সকাল ১০ টায় হোমনা আদর্শ স্কুল মাঠে অনুষ্ঠিত হয়েছে।
সম্মেলনে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন
বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব মাইনুল হাসান খান নিখিল।
উদ্বোধন করেন কুমিল্লা ২ (হোমনা-তিতাস) আসনের এমপি সেলিমা আহমাদ মেরী।  প্রধান বক্তার বক্তব্য রাখেন কুমিল্লা উত্তর জেলা যুবলীগের আহ্বায়ক বাহাউদ্দিন বাহার। বিশেষ বক্তা হিসেবে ছিলেন কুমিল্লা উত্তর জেলা যুবলীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মোঃ সারওয়ার হোসেন বাবু।  সভাপতিত্ব করেন হোমনা উপজেলা যুবলীগের আহ্বায়ক খন্দকার নজরুল ইসলাম।
বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন, যুবলীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য মঞ্জুর আলম শাহিন,  এম শাহাদাত হোসেন তসলিম,  কুমিল্লা উত্তর জেলা আ’লীগের সভাপতি ম. রুহুল আমিন,  সাধারণ সম্পাদক মো. রোশন আলী মাষ্টার,  হোমনা পৌরসভার মেয়র এডভোকেট মোঃ নজরুল ইসলাম প্রমুখ।
এছাড়া  উপস্থিত ছিলেন,  যুবলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির এহতেশামুল হায়দার রুমি,  আতিকুর রহমান পিন্টু,  তিতাস উপজেলা আ’লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা মোঃ শওকত আলী,  যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক হাজি মোঃ নাছির উদ্দিন,      হোমনা উপজেলা আ’লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মহিউদ্দিন খন্দকার,  আ’লীগ নেতা রিপন সিকদার, গোলাম সারোয়ার, হোমনা উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক প্রার্থী কায়সার আহমেদ ও তিতাস উপজেলা আওয়ামী যুবলীগের আহবায়ক মোঃ সাইফুল আলম মুরাদ প্রমুখ।
এ সময় প্রধান অতিথি তার বক্তৃতায় বলেন, মাদকের সাথে জড়িত কোন ব্যক্তি যুবলীগে নিষিদ্ধ।  জননেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ঘোষিত মাদক মুক্ত বাংলাদেশ গড়তে যুবলীগকে তৈরি থাকতে হবে।   এলাকা থেকে মাদক ব্যসায়ীকে বিতাড়িত করতে হবে।  হোমনা তিতাসের কোন যুবলীগের নেতার বিরুদ্ধে মাদকের অভিযোগ থাকতে পারবে না। বিএনপি জামায়ত জোট সরকারের সমালোচনা করে তিনি আরও বলেন, ক্ষমতায় থাকাকালীন আমাদের উপর অনেক অত্যাচার নির্যাতন করেছে। মামলা- হামলা করে হয়রানি করা ছিল জোট সরকারের নিত্যনৈমত্তিক ব্যাপার।
আরও বলেন, জাতির পিতার পরিবার হলো ইসলামের বন্ধু পরিবার।  লক্ষ লক্ষ আলেম তৈরি করেছেন জাতির পিতা। বঙ্গবন্ধু মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ড এবং ইসলামিক ফাউন্ডেশন তৈরি করেছেন। করোনাকালীন সময়ে দেশরত্ন শেখ হাসিনা মাদ্রাসাগুলোতে শতশত কোটি টাকা অনুদান দিয়েছেন। মামুনুল হকদের মত মাওলানাদের বিরুদ্ধে সজাগ থাকতে হবে। তারা এদেশটাকে জঙ্গী রাষ্ট্রে পরিণত করতে চায়।  যুবলীগকে রাজপথে থাকতে হবে।
সংসদ সদস্য সেলিমা আহমাদ মেরী বলেন,  আমার ভাই নিখিল আছে আমার সাথে, এখন আমার শক্তি দ্বিগুণ হয়ে গেল।  আমি সন্ত্রাস, চাঁদাবাজ ও মাদক কারবারীদের বিরুদ্ধে কাজ করতে আরও বেশি শক্তি পাব। হোমনা তিতাসের উন্নয়নে অবদান রাখতে সক্ষম হব। দ্বিতীয় অধিবেশনে কাউন্সিলরদের ভোটে নির্বাচিত করা হবে হোমনা উপজেলা যুবলীগের আগামী দিনের নেতৃত্ব।