মাদারীপুরে যৌতুকের দাবিতে গৃহবধুকে নির্যাতনের অভিযোগ

Spread the love
মাদারীপুর প্রতিনিধিঃ মাদারীপুরের কালকিনিতে যৌতুকের দাবিতে মিলি খানম (২২) নামে এক গৃহবধুকে মধ্যযুগীয় কায়দায় শারীরিক ও মানসিকভাবে নির্যাতনের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় ওই ভুক্তভোগী গৃহবধু আদালতে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে একটি মামলা দায়ের করেছেন।
ভুক্তভোগী পরিবার সুত্রে জানা গেছে, কালকিনি পৌরসভার পশ্চিম শিকারমঙ্গল গ্রামের লোকমান ফরাজীর মেয়ে মিলি খানমের সঙ্গে গৌরনদী উপজেলার খাঞ্জাপুর এলাকার বাকাই গ্রামের আবুল হোসেন পালোয়ানের ছেলে রাশেদুল ইসলামের প্রায় ৪ বছর আগে পারিবারিকভাবে বিয়ে হয়। বিয়ের দেড় বছর পর তাদের সংসারে একটি কন্যা সন্তান জন্ম গ্রহন করে। এরপর থেকেই বিভিন্ন সময় স্বামী রাশেদুল স্ত্রী মিলি খানমকে যৌতুকের টাকার জন্য চাপ প্রয়োগ করতে থাকে। কিন্তু মিলির পরিবার অতি দরিদ্র হওয়ায় দাবিকৃত যৌতুকের টাকা দিতে ব্যর্থ হয়। এতে করে যৌতুক লোভী রাশেদুল ক্ষিপ্ত হয়ে প্রায়ই মিলি খানমকে প্রচন্ড মারধর করে করতে থাকে। এক পর্যায়ে স্বামীসহ শশুর বাড়ির লোকজন মিলির গলায় চাকু ঠেকিয়ে হত্যার হুমকি দিয়ে জোরপূর্বক ডিফোর্স লেটারে সই করিয়ে বাবার বাড়ি পাঠিয়ে দেয়।
বর্তমানে গৃহবধূ মিলি খানম তার শিশু সন্তানকে নিয়ে তার দরিদ্র বাবার বাড়িতে রয়েছে। এ নির্যাতনের বিচারের আশায় মিলি খানম বাদী হয়ে মাদারীপুর আদালতে স্বামী রাশেদুল ইসলামকে আসামী করে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে একটি মামলা দায়ের করেছেন।
ভুক্তভোগী গৃহবধু মিলি খানম বলেন, আমার পরিবার যৌতুক দিতে না পারায় আমাকে দিনের পর দিন আমার স্বামী রাশেদুল প্রচন্ড মারধর করেছে। আমার গলায় চাকু ঠেকিয়ে হত্যার হুমকি দিয়ে জোরপূর্বক ডিফোর্স লেটারে সই করিয়ে আমাকে বাবার বাড়ি পাঠিয়ে দিয়েছে স্বামী ও শ্বশুর-শাশুরী।
মিলির বাবা লোকমান ফরাজী বলেন, আমি একজন বৃদ্ধ গরীব মানুষ। আমি টাকা পয়সা পাবো কোথায়। আমি যৌতুকের টাকা দিতে না পারায় আমার মেয়েকে জোরপূর্বক তালাকের কাগজে সই রেখে আমার বাড়িতে পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে। আমি সরকারের কাছে রাশেদুলের বিচার চাই।
অভিযুক্ত রাশেদুল ইসলাম বলেন, আমার স্ত্রী লোক ভালো না। সে আমাকে তালাক দিয়ে স্বইচ্ছায় বাবার বাড়ি চলে গেছে। আমি মারধর করেনি।
কালকিনি উপজেলা লিগাল এইড কর্মকর্তা ঝর্না বেগম বলেন, যৌতুকের জন্য কোন নারীকে নির্যাতন করা যাবে না। এটা করা গুরুতর অপরাধ ও ঘৃনাযোগ্য কাজ।
এব্যাপারে কালকিনি থানার উপপরিদর্শক (এসআই) মোঃ সুমন বলেন, এ বিষয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।
Attachments area